অবিবাহিত নারীদের সুখবর দিলেন লন্ডনের এক অধ্যাপক

অবিবাহিত নারীদের সুখবর দিলেন লন্ডনের এক অধ্যাপক

জীবনে চলার জন্য মানুষের একজন সঙ্গী প্রয়োজন। কেউ একা বাঁচতে পারেনা। কারও বাবা-মা চিরদিন বেঁচে থাকেনা। আপন ভাই-বোনেরাও একসময় নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পরে। তাই নিজের একজন সঙ্গী পেতে ও উত্তরাধীকারী তৈরি করতে মানুষ বিপরীত লিঙ্গের কারো সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। যার বিয়ে হয়না বা যে বিয়ে করেনা তাকে মানুষের কাছ থেকে নানা কটু কথা শুনতে হয়। নারীদের ক্ষেত্রেত সেটা কয়েকগুণ বেশি। যে নারীর বিয়ে হয়নি বা বিয়ে হতে দেরি হচ্ছে তাকে নিয়ে তার নিজের ও পরিবারের চিন্তার শেষ নেই।

 

তবে এবার অবিবাহিত নারীদের জন্য বেশ বড়সড় সুখবর দিলেন ‘পল ডোলান লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিকসের’ আচরণ বিজ্ঞান বিভাগের একজন অধ্যাপক। তিনি জানিয়েছে, ‘পৃথিবীর মানুষদের মধ্যে যেসব নারীর স্বামী-সন্তান নেই তারাই সবচেয়ে বেশি সুখী। শুধু তা-ই নয়, সন্তান পালনকারী ও বিবাহিত নারীদের চেয়ে অবিবাহিত বা কুমারি নারীরা বাঁচেও বেশিদিন।’

 

‘হে ফেস্টিভ্যাল’ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘মানুষের সফলতা সন্তান লালন-পালন ও বিয়ের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়। বিবাহিত মানুষরা শুধু তখনই সুখী যখন তাদের সঙ্গীরা ঘরে থাকে। কিন্তু যখন সঙ্গী কাছে না থাকে তখন তার জীবনটা দুর্বিসহ। বিবাহের দ্বারা শুধু পুরুষরাই উপকৃত হচ্ছে। কেননা, এর দ্বারা পুরুষ শান্ত ও স্থির থাকে। এতে তার ঝুঁকি কম। কর্মক্ষেত্রে তার আয়ও বেশি। এর ফলে তারা একটু বেশি দিন বাঁচে।’অন্যদিকে, বিবাহিত নারীকে তার সঙ্গীকে বিভিন্নভাবে সেবা বা সঙ্গ দিয়ে যেতে হয়। এ কারণে অবিবাহিত নারীর তুলনায় সে বাঁচেও কম দিন। সবচেয়ে সুখী এবং সুস্বাস্থ্যবান নারী হচ্ছে তারাই যারা বিয়ে করে না এবং সন্তান জন্ম দেয় না।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© ২০১৯ | ভিউয়ার বাংলাদেশ কর্তৃক সর্বসত্ব ® সংরক্ষিত

Design BY NewsTheme