তেল চোরের মূলহোতা র‌্যাবকে ১০ লাখ টাকা দিতে গিয়ে আটক

তেল চোরের মূলহোতা র‌্যাবকে ১০ লাখ টাকা দিতে গিয়ে আটক

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার ছয়হিষ্যা নদী ঘাট এলাকা থেকে ৩টি ইঞ্জিন চালিত ট্রলারে থাকা ২২০ ড্রামে রক্ষিত ৪১ হাজার ৮০০ লিটার চোরাই পাম ওয়েল উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১১ এর একটি টিম। এসময় চোরাই তেলের বিষয়টি আইনের আওতায় না আনার জন্য চোরাই তেলের মূলহোতা মো. রফিকুল ইসলাম (৪২) র‌্যাব সদস্যদের ১০ লাখ টাকা ঘুষ দেয়ার চেষ্টা করে। পরে ঘুষের টাকাসহ তেল চোর রফিকুল ইসলামকে আটক করে র‌্যাব। গতকাল বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে এ অভিযানটি চলে এবং শুক্রবার অভিযানের বিষয় নিশ্চিত করে র‌্যাব।

 

শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ সেন্ট্রাল খেয়াঘাটে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক (সিও) কাজী শমসের উদ্দিন এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-১১ এর উপ-পরিচালক মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব, র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ। আটক রফিকুল ইসলাম সোনারগাঁয়ের ছয়হিষ্যা গ্রামের মৃত আবুল কাসেম সরকারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

 

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক (সিও) কাজী শমসের উদ্দিন জানান, আটক রফিকুল ইসলাম জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে সে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে পাম ওয়েলসহ অন্যান্য ভোজ্য ও জ্বালানি তেল চোরাইভাবে বেচাকেনা করছে। এই চোরাই পাম ওয়েল নারায়ণগঞ্জসহ ঢাকার বিভিন্ন তেল ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করতো। সোনারগাঁয়ের ছয়হিষ্যা ঘাটে বেশ কয়েকটি চোরাই পাম ওয়েলের সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে। ওই চোরাই পাম ওয়েলের সঙ্গে ভেজাল তেল মিশিয়ে বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করা হতো। আর উদ্ধারকৃত চোরাই পাম ওয়েলের মূল্য আনুমানিক ২১ লাখ টাকা।

 

তিনি আরো জানান, চোরাই তেল কারবারীদের বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান চলছে। চোরাই তেল ব্যবসায়ীরা ক্ষমতাসীন দলের হলেও তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। মহাসড়কের পাশেও অনেক অবৈধ চোরাই তেলের দোকান রয়েছে। সেগুলোতেও হাইওয়ে পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে অভিযান পরিচালিত হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019 viewer.com.bd
Design BY NewsTheme