সমকা’মী স্বামী স্ত্রীকে ধ’র্ষণ করান অন্য ছেলেদের দিয়ে!

সমকা’মী স্বামী স্ত্রীকে ধ’র্ষণ করান অন্য ছেলেদের দিয়ে!

‘নুসরাত তো ম’রে গিয়ে বেঁচে গেছে, আর আমি বেঁচেও ম’রে আছি। আমার স্বামী প্রায় রাতে আমাকে অন্য পুরুষের হাতে তুলে দিত।এ সময় আপত্তিকর ছবি তুলে ও ভিডিও করে তা ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হু’মকি দিচ্ছে। এ ল’জ্জা থেকে আমার ম’রে যাওয়াই ভালো। কিন্তু একমাত্র শিশুপুত্রের কথা চিন্তা করে ম’রতেও পারছি না’।বুক চা’পড়ে কান্নাজ’ড়িত কণ্ঠে কথাগুলো বলছিলেন সাভারের মিঠুন সরকারের নি’র্যাতিত স্ত্রী। মিঠুন সরকার সাভার পৌর এলাকার বাড্ডা ভাটপাড়া মহল্লার বাসিন্দা।

 

সম্প্রতি এক কিশোর ব’লাৎকারের ঘটনায় মিঠুনের বি’রুদ্ধে থানায় মামলা হয়। এ ঘটনার প্র’তিবাদে তাকে গ্রে’প্তারের দাবিতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অ’বরোধ করে মানববন্ধন ও বি’ক্ষোভ মিছিল করে।

এ ঘটনায় মিঠুন সরকার গা ঢাকা দিলে নি’র্মম নি’র্যাতনের শিকার হওয়া স্ত্রী একমাত্র ছেলেকে নিয়ে পা’লিয়ে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেন।

পরে শুক্রবার জীবনের নি’রাপত্তা চেয়ে সাভার মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। এ ছাড়া রোববার ঢাকার নারী ও শিশু নি’র্যাতন ট্রাইবুনাল-৯ এ একটি মামলা দায়ের করেন ওই নারী।

আদালত মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইন’ভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) ত’দন্তের দায়িত্ব দিয়েছে। মিঠুনের বি’রুদ্ধে দায়ের করা মামলা ও সাধারণ ডায়েরি থেকে জানা যায়, প্রায় ৩ বছর আগে কাউকে না জানিয়ে একটি মন্দিরে গিয়ে বিয়ে করে মিঠুন।

এরপর থেকে টাকার জন্য স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিকসহ নানাভাবে নি’র্যাতন শুরু করে। স্ত্রীকে অ’কথ্য ভাষায় গা’লিগালাজ আর মা’রধর ছিল নিত্যদিনের ঘটনা।

মিঠুন উঠতি বয়সের যুবকদের নিয়ে বাসায় ফিরত এবং স্ত্রীকে তুলে দিত তাদের হাতে। এ ছাড়া ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অ’চেতন করে অন্য পুরুষকে দিয়েও স্ত্রীকে যৌ’ন নি’র্যাতন করাত।

পরবর্তীতে সেগুলোর ভিডিও করে ওই যুবকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিত মিঠুন। মিঠুনের স্ত্রী জানান, ‘আমার প্রতি ওর কোনো মোহ নেই।

ও সব সময় উঠতি বয়সের যুবকদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতে ভালোবাসে। মূলত সে একজন সমকা’মী ও কু’রুচিসম্পন্ন মানুষ। তার এসব কাজে বাধা দিলেই আমাকে লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পে’টাত।

সে যেসব ছেলেদের সাথে শারীরিক সম্পর্ক করে ওই সব ছেলেদের হাতে তুলে দেয় আমাকে। কয়েক মাস আগে মিঠুন আমাকে ঘুমের ট্যাবলেট খেতে দেয়। কিন্তু কৌশলে ট্যাবলেট না খেয়ে আমি ঘুমের অভিনয় করে শুয়ে থাকি।

পরে মিঠুনের সহযোগিতায় ওই রাতে এক যুবক ঘরে ঢুকে আমাকে ধ’র্ষণের চেষ্টা করে। ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে একইভাবে মিঠুন এক যুবককে বেডরুমে ঢুকিয়ে দিলে ওই যুবকও আমাকে ধ’র্ষণের চেষ্টা করে।

এ সময় ওই যুবকের সঙ্গে কিছু আপত্তিকর ছবি তোলে ও ভিডিও করে নিজের হেফাজতে রাখে। প্রতিবাদ করলেই মিঠুন এসব ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হু’মকি দিত’।

তার মা বলেন, যে স্বামী তার স্ত্রীকে অন্য পুরুষের হাতে তুলে দিতে পারে সে তার স্ত্রীকে হ’ত্যাও করতে পারে। তাই জেনে শুনে আমার মেয়েকে ওই নরপশুর হাতে দিতে চাই না। শয়তানটা আমার মেয়েকে মে’রে ফেলবে।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ জানান, মিঠুন সরকারের বি’রুদ্ধে স’ন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, চাঁদাবাজি ও ডিজিটাল নি’রাপত্তা আইনসহ নানা অ’ভিযোগে প্রায় ১৪টি মামলা রয়েছে।

কয়েকটি মামলায় আদালতে চা’র্জশিট প্রদান করা হয়েছে। ২০ অক্টোবর এক কিশোর ব’লাৎকারের ঘটনায় তার বি’রুদ্ধে আরো একটি মামলা হয়েছে। তার স্ত্রী থানায় এসে তার বি’রুদ্ধে লিখিত অ’ভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরি করেছেন, যা ত’দন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© ২০১৯ | ভিউয়ার বাংলাদেশ কর্তৃক সর্বসত্ব ® সংরক্ষিত

Design BY NewsTheme