পূজা উপলক্ষে আরও ৬৩ মেট্রিক টন ইলিশ গেল ভারতে

পূজা উপলক্ষে প্রতিশ্রুত ১ হাজার ৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশের মধ্যে দ্বিতীয় চালানে ৬৩ মেট্রিক টন ২৪০ কেজি ইলিশ ভারতে রফতানি হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ৮টি ট্রাকে এ ইলিশের চালান কাস্টমস ও বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে প্রবেশ করে।

 

জানা যায়, বিরূপ আবহাওয়া ও পরিবেশগত সমস্যায় দেশে ইলিশের সংগ্রহ কমে যাওয়ায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে ২০১২ সালের পহেলা অক্টোবর থেকে দেশের বাইরে ইলিশ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এরপর থেকে ইলিশ রফতানি বন্ধ ছিল।

 

তবে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সাথে গভীর বন্ধুত্ব ও বাণিজ্যিক সম্পর্কের কারণে নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও গত বছরে দুর্গা পূজাতে বাংলাদেশ সরকার ভারতে ৫শ’ মে.টন ইলিশ দেয়। এবার পূজায় ১ হাজার ৪৫০ মে.টন ইলিশের অনুমতি হয়েছে। তার অংশ হিসেবে সোমবার প্রথম চালানে দুই ট্রাকে ১২ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রফতানি হয়।

 

বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা শামিম হোসেন জানান, প্রতি কেজি ১০ ডলার মূল্যে শুল্কমুক্ত সুবিধায় এ ইলিশ ভারতে রফতানি হচ্ছে।এদিকে এ ইলিশ ভারতে রফতানির জন্য বাংলাদেশি ৯ টি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান সরকারের কাছ থেকে অনুমোদন পেয়েছেন।

 

মাছ রফতানিকারক খুলনার জাহানাবাদ সি ফুডস লিমিটেডের প্রতিনিধি নিলা এন্টারপ্রাইজের মালিক মিহির মুখার্জি জানান, ১৪৫০ মে.টনের মধ্যে তারা ১৫০ মে.টন ইলিশ রফতানির অনুমতি পেয়েছেন। আশা করছেন নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে সব চালান ভারতে ঢুকবে।

 

বেনাপোল সিএন্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, দেশে ইলিশ সংকটের কারণে দীর্ঘ ৮ বছর ধরে বিদেশে ইলিশ রফতানি বন্ধ রয়েছে। তবে প্রতিবেশী দেশ ভারতের সাথে বন্ধুত্ব সম্পর্ক বাড়াতে এ ইলিশ যাচ্ছে ভারতে। এতে করে দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সুসম্পর্ক আরো বাড়বে বলে তিনি মনে করছেন।বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের শর্ত অনুযায়ী আগামী মাসের ১০ অক্টোবরের মধ্যে বাকি ইলিশ রফতানি করা হবে।

মতামত দিতে চান?

Please enter your comment!
Please enter your name here